ঘুমিয়ে নাক ডাকার কারণ কি ?
ঘুমিয়ে নাক ডাকার কারণ কি ?

ঘুমিয়ে নাক ডাকার কারণ কি ?

5/5 - (1 vote)

ঘুমিয়ে নাক ডাকার কারণ কি ?

আমাদের মধ্যে অনেকেই এই সমস্যায় ভোগেন। ভোজপুরি ও বয়স্ক পুরুষের ক্ষেত্রে এই সমস্যা বেশি দেখা যায়। বিশেষ করে যাদের বয়স ৪০ বছরের বেশি তাদের নাক ডাকা একটি সাধারন ব্যাপার। বিকট শব্দে নাক ডাকা বন্ধ দরজা দিয়ে পাশের ঘর থেকে শোনা যায় সব বয়সেই অস্বস্তিকর। বাচ্চাদের নাক ডাকা একটি অস্বাভাবিক ব্যাপার যা সাধারণত বিভিন্ন রোগের কারণে হয়ে থাকে। মারাত্মক হলো ঘুমের মধ্যে দম বন্ধ হয়ে আসা বা শ্বাস নেয়ার জন্য হাঁসফাঁস করা যাতে মেম্বার স্লিপ অ্যাপনিয়া সিনড্রোম বলে।

ঘুমিয়ে নাক ডাকার কারণ কি ?

বেশিরভাগ ক্ষেত্রে এটি শ্বাসের রাস্তায় বাতাস ব্যাপকভাবে বাধাপ্রাপ্ত হয় হয়ে থাকে। নাসারন্ধ্র থেকে ফুসফুস পর্যন্ত যেকোনো স্থানে এই প্রতিবন্ধকতা হতে পারে। সাধারণ প্রশ্নের তালুকদার মুখগহ্বর হলো নাক ডাকার উৎপত্তিস্থল। তিন স্থানে কোন রোগ বা প্রবাহের কারণে প্রতিবন্ধকতা হলে নাক ডাকার সৃষ্টি হয়ে থাকে।

এছাড়া নাকের হাড় বেঁকে যাওয়া বা সাইনাসের প্রদাহ এবং মোটা মানুষের ক্ষেত্রে গলার মধ্যে অতিরিক্ত মেদ জমার কারণে নাক ডাকার সমস্যা দেখা দেয়। ঘন ঘন ঘন অন্য কোন কারণে টনসিল বড় হয়ে গেলে অথবা উভয় ক্ষেত্রে ছোটদের এ সমস্যা দেখা দেয়। বুদ্ধিমত্তার ক্রমশ অবনতি অমনোযোগিতা ব্যক্তিত্বের পরিবর্তন মাথাব্যথা সকালে মাথা ভার হয়ে থাকা এবং বাচ্চাদের ক্ষেত্রে ঘন ঘন প্রস্রাব হওয়া ইত্যাদি নাক ডাকা রোগের প্রধান উপসর্গ।

ঘুমিয়ে নাক ডাকার কারণ কি ?

বলুনতো কি ধরনের বেশিরভাগ রোগীর দিনের বেলায় ঘুম ঘুম ভাব জনিত সমস্যার কারণে ডাক্তারের শরণাপন্ন হন। রোগীর নিকটজন নাক ডাকা বন্ধ বন্ধ হওয়ার সমস্যা জনিত কারণে রোগীকে ডাক্তারের কাছে নিয়ে আসেন। এই ধরনের রোগী সৌমিত্র ঘুমিয়ে পড়ে এবং রোগী ঘুমানোর সঙ্গে সঙ্গে নাক ডাকতে শুরু করে। নাক ডাকার শব্দ তীব্র থেকে তীব্রতর হয়ে থাকে এবং এক পর্যায়ে রোগীর দম সম্পূর্ণরূপে বন্ধ হয়ে আসে।
কি অবস্থা চরমে উঠল রোগীর ঘুম ভেঙে যায় ফলে রোগী আবার স্বাভাবিক শ্বাস নিতে শুরু করে এবং এতে তার কিছুটা শান্তি অনুভব হয়।

যেহেতু শরীর ক্লান্ত থাকে সে আবার অতি দ্রুত নিদ্রাচ্ছন্ন হয়ে পড়ে এবং পুনরায় নাক ডাকার প্রক্রিয়া শুরু করে এবং এ ঘটনার পরপর চলতেই থাকে। ঘুমের মধ্যে আরাম হওয়ার পরিবর্তে রোগী সাধারণত সারারাত ধরে জীবন বাঁচানোর সংগ্রামে লিপ্ত থাকে। ফলে জীবনের ওপর ঝুঁকি পর্যন্ত নেমে আসতে পারে।এ রোগের প্রাথমিক অবস্থায় ঘুমের একটি নির্দিষ্ট পর্যায়ে বা ঘুমানো অবস্থায় শরীরের কোন বিশেষ অবস্থানে এ ঘটনা ঘটতে থাকে।

নাক ডাকার কারণে পাশের জমির ঘুমানোর সমস্যা হয়

ঘুমিয়ে নাক ডাকার কারণ কি ?

নাকের মাংস বেড়ে যাওয়ার কারণে অনেক সময় নাক ডাকার সমস্যা দেখা যায়।
নাকের মাংস বেড়ে যাওয়া ছাড়াও নাকের বিভিন্ন রকম রোগ হতে পারে।
তাই নাক ডাকার সমস্যা দেখা দিলে অবশ্যই নাক কান বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকের পরামর্শ হতে হবে।
এছাড়া শরীরের ওজন অতিরিক্ত পরিমাণে বেড়ে গেলে অর্থাৎ শরীরের মেদভূড়ি ও চর্বি জমা হলে নাক ডাকার সমস্যা দেখা যায় ।
তাই নাক ডাকার সমস্যা দেখা দিলে তা অবহেলা না করে অবশ্যই ডাক্তারের শরণাপন্ন হতে হবে এবং স্বাস্থ্যবিধি মেনে জীবন যাপন করতে হবে অর্থাৎ চর্বিযুক্ত খাবার এবং অলস জীবন যাপন পরিহার করতে হবে ।

সকালের ঘুম দূর করার উপায় কি কি ?

গভীর রাতে ঘুম ভেঙে যাওয়ার কারণ কি কি

আরো জানতে 

About bdbarguna24

Check Also

প্রতিদিন কলা খেলে যে সকল উপকার হবে

Rate this post প্রতিদিন কলা খেলে যে সকল উপকার হবে আমাদের দৈনন্দিন জীবনে কলা একটি …

Leave a Reply Cancel reply