আপনি জানেন কি বিয়ের আগে কেন হলুদ গোসল করানো হয়?
আপনি জানেন কি বিয়ের আগে কেন হলুদ গোসল করানো হয়?

আপনি জানেন কি বিয়ের আগে কেন হলুদ গোসল করানো হয়?

Rate this post

বিয়ে একটি সামাজিক রীতি। কয়েকটি ধাপে অনুষ্ঠানের মাধ্যমে বিয়ে সম্পন্ন হয়। বিয়েতে প্রচলিত একটি রীতি হলো গায়ে হলুদ। দেশের বিভিন্ন অঞ্চলে বিভিন্ন রীতি প্রচলিত থাকলেও গায়ে হলুদ প্রথাটি সর্বত্রই প্রচলিত।গায়ে হলুদ কে শুধুমাত্র একটি অনুষ্ঠানে হিসেবে বিবেচনা করা হলেও মূলত এর পেছনে যথেষ্ট কারণ রয়েছে। বিয়েতে কেন গায়ে হলুদ দেয়া হয় তা আমাদের অনেকের কাছেই অজানা। আজকে আমরা জেনে নেবো গায়ে হলুদ দেয়ার কারণ।

আপনি জানেন কি বিয়ের আগে কেন হলুদ গোসল করানো হয়?

ত্বক উজ্জ্বল ও মসৃণ রাখার কাজে হলুদ একটি কার্যকরী উপাদান। ত্বক বিষাক্ত উপাদান এর কারণে মলিন ও অস্বস্তিকর হয়ে পড়ে। হলুদ তোকে পরিশোধিত করে। ফলে ত্বক হয়ে ওঠে উজ্জ্বল ও মসৃণ। ব্রণ ও কালো দাগ কমাতে সাহায্য করে হলুদ বর্ণের বিরুদ্ধে কাজ করে জ্বলুনি কমাবে বিশেষ করে যাঁদের ত্বক সংবেদনশীল তাদেরকে হলুদ খুব ভালো কাজ করে।

 

রূপচর্চা বিষয়ক সকল সমস্যার সমাধান করে থাকে হলুদ। হলুদে আছে প্রাকৃতিক উপাদান কারকিউমিন রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়াতে ভূমিকা রাখে।এটি সিরোসিস ও একজিমার কারণে হওয়া ত্বকের প্রদাহ কমাতে সাহায্য করে।

হলুদ দ্রুত ত্বকের জারণ ও মানসিক চাপের কারণে হওয়া মলিন ভাব দূর করতে সাহায্য করে। ক্ষত স্থানের উপর কেবল হলুদ লাগিয়ে রাখলে তা সেরে যায়।

আপনি জানেন কি বিয়ের আগে কেন হলুদ গোসল করানো হয়?

বয়সের ছাপ কমাতে সাহায্য করে হলুদ। এতে আছে কোষকলার মাত্রা বৃদ্ধি ও আর্দ্রতা রক্ষা করার ক্ষমতা।হলুদ খুব সহজে বলিরেখা ও ত্বকের ভাঁজ দূর করতে সাহায্য করে।

হলুদ সূর্যের অতিবেগুনি রশ্মি থেকে ত্বককে রক্ষা করতে সাহায্য করে

হলুদ সূর্যের অতিবেগুনি রশ্মি থেকে আমাদের রক্ষা করে। কারণ হলুদে আছে অ্যান্টি অক্সিডেন্ট। হলুদের পেস্ট ব্যবহার করলে ত্বক ঠান্ডা ও আরাম অনুভূত হয়। দৈনন্দিন কাজকর্মে আমাদের ত্বকে র্যাশ এবং সূর্যের আলোর তীব্রতার কারণে পোড়া ভাব সৃষ্টি হয়। হলুদ সূর্যের আলোর তীব্রতার কারণে হওয়ার রেশ এবং পোড়া ভাব দূর করতে সাহায্য করে।

আপনি জানেন কি বিয়ের আগে কেন হলুদ গোসল করানো হয়?

ত্বক বিষাক্ত উপাদান এর কারণে মলিন হয়ে গেলে হলুদ সেই ত্বকের সজীবতা ফিরিয়ে আনতে সাহায্য করে।

সেই প্রাচীনকাল থেকে হলুদের ব্যবহার হয়ে আসছে।ব্যথা বেদনা থেকে সংক্রমণ কিংবা রূপচর্চার সকল কিছুতেই বেশ উপকারী উপাদান হলো হলুদ।এটি এমন একটি প্রাকৃতিক উপাদান যা ত্বকের জন্য প্রসাধনী হিসেবে খুব ভালো। এতে কারকিউমিন নামক একটি উপাদান রয়েছে। এর মাধ্যমে অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট ত্বকের প্রবেশ করে। হলুদের অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট ও অ্যান্টি ইনফ্লেমেটরি উপাদান ত্বক উজ্জ্বল রাখতে বেশ ভূমিকা পালন করে। ত্বকের স্বাভাবিক আবার তুলে ধরাই হলো হলুদ এর প্রধান কাজ।এ জন্য একটি হলুদ মধু আর দই মিশিয়ে প্যাক তৈরি করে মুখে লাগিয়ে ১৫থেকে ২০ মিনিট রাখলে, এবং ঠাণ্ডা পানি দিয়ে মুখ ধুয়ে ফেললে ত্বকের উজ্জ্বলতা বৃদ্ধি পাবে।

অর্থাৎ বিয়ের পূর্বে কনের ত্বকের উজ্জ্বলতা বৃদ্ধি এবং সৌন্দর্যবর্ধনের জন্য তাকে হলুদ দেয়া হয়।  শারীরিক সৌন্দর্য বর্ধন বিয়ের পূর্ব শর্ত। এজন্য কনের গায়ে হলুদ দেয়া হয় যাতে তার ত্বকের উজ্জ্বলতা বৃদ্ধি পায় এবং মলিন ভাব দূর হয়ে যায়।

হলুদের প্যাক ব্যবহার করলে ডার্ক সার্কেল দূর হয়। এ জন্য যুগ যুগ ধরে মেয়েদের রূপচর্চার কাজে হলুদ ব্যবহার হয়ে আসছে এবং এটি যথেষ্ট সুফলদায়ক।

About bdbarguna24

One comment

  1. Pingback: অপু বিশ্বাস সম্পর্কে কিছু তথ্য - BD BARGUNA 24

Leave a Reply Cancel reply