চুল বেঁচে ২০০ কোটি টাকা আয়
চুল বেঁচে ২০০ কোটি টাকা আয়

চুল বেঁচে ২০০ কোটি টাকা আয়

Rate this post

চুল বেঁচে ২০০ কোটি টাকা আয়

ব্যাপারটি আপনারা অনেকেই শুনে অবাক হবেন।কিন্তু এটাই সত্যি যে চুল বেঁচে ভারতের একটি মন্দির প্রচুর পরিমাণে টাকা আয় করছে। প্রতি কেজি চুল ৩ থেকে ৪ মিলিয়ন ডলারে বিক্রি হচ্ছে। এরকমই খবর পাওয়া গেছে ভারতের একটি মন্দিরে। চলুন জেনে নেই এ সম্পর্কে বিস্তারিত।

চুল বেঁচে ২০০ কোটি টাকা আয়

ভারতের অন্ধ্রপ্রদেশে টিরুমালা তে অবস্থিত একটি মন্দির। জানা গেছে এই মন্দিরে সবচেয়ে বেশি লোক সমাগম হয়।ভক্তরা মন্দিরের চুল দান করে নিজেদেরকে পূণ্যবান মনে করেন। প্রতিদিন প্রায় ৭৫ হাজার লোক আসে এই মন্দিরে। তারা মনে করে যে চুল দান করা একটি পুন্যের কাজ। প্রতি ১০ মিনিটে একজন লোক মাথা কামিয়ে থাকেন।

অনেক মহিলারা অভাবের তাড়নায় চুল বিক্রি করে জীবিকা নির্বাহ করে। পুরুষেরা নিজের ইচ্ছায় এসে চুল দান করে দেন। অনেক সময় মহিলাদেরকে তাদের স্বামীরা চুল কাটাতে বাধ্য করে। ছোট বাচ্চাদেরকে খেলনার লোভ দেখিয়ে চুল নিয়ে নেয়া হয়। এই সব কিছুর একটাই উদ্দেশ্য আর তা হলো পূণ্য অর্জন।

চুল বেঁচে ২০০ কোটি টাকা আয়

মন্দিরে প্রচুর নাপিত নিয়োগ করা রয়েছে এই কাজের জন্য। অল্প দামে তারা চুল ক্রয় করে। এবং পরবর্তীতে প্রচুর দামে সেই চুল বিক্রয় হয়। বলিউডের নায়িকারা পর্যন্ত এইসব চুলের নিয়মিত ক্রেতা। ৩১ ইঞ্চি এর উপরের চুলগুলো স্টেপ ওয়ান নামে পরিচিত। তবে সবচেয়ে বেশি দামি চুল হলো ১৮ ইঞ্চি এর চুল গুলো।

এই চুলগুলো মন্দির কর্তৃপক্ষ খুব অল্প দামে কিনে থাকেন। সাধারণ মানুষ অতি অল্প টাকার বিনিময়ে চুল বিক্রি করেন। পরবর্তীতে বলিউডের নায়িকাদের কাছে এই চুল কোটি কোটি টাকায় বিক্রি হয়। প্রতিদিন প্রায় ৭৫ হাজার লোক এসে চুল দিয়ে থাকেন। বিভিন্ন পালাবার বনে মহিলাদের ভিড় জমে চুল দেয়ার জন্য।
ঠাকুরের পায়ে চুল দান করে সাধারণ মানুষ ধারনা করে তাদের পূন্য অর্জন হচ্ছে। এছাড়া অনেক মানুষ অভাবের জন্য চুল বিক্রি করে।

অন্ধপ্রদেশের তিরুমালা অবস্থিত এই মন্দির ছাড়াও আরো অনেক মন্দিরে এমন পাওয়া গেছে, যেখানে সাধারন মানুষ চুল বিক্রি করে। এই চুল দেশের অভ্যন্তরে এমনকি বিদেশে বিক্রি করে কোটি কোটি টাকা অর্জন করছে মন্দির এর মালিক।

চুল বেঁচে ২০০ কোটি টাকা আয়

জানা গেছে ২০১২-১৩ সালের মধ্যে, মন্দিরটি শুধুমাত্র চুল বিক্রয় করে ২০০ কোটি টাকা আয় করেছে।
এরকমই ব্যবসা চলে আসছে দেশের বিভিন্ন স্থানে। তবে চুল বিক্রয় এবং চুল দানের ঘটনা ভারতে বেশিরভাগ দেখা যায়। অনেক মানুষের জীবিকার সন্ধান হয়ে উঠেছে এটি। মন্দিরের বার্ষিক আয় ১০ ভাগের এক ভাগ আসে বিক্রয় করার চুল থেকে। এভাবেই চুল বিক্রয় মানুষের জীবিকার সন্ধান হয়ে উঠছে।

ক্রিকেট বিশ্বের এক জীবন্ত ইতিহাস জন_ব্রেস্টো..!!

About bdbarguna24

Check Also

চাল-ডালের দাম বাড়লো বছরের শুরুতে

Rate this post চাল-ডালের দাম বাড়লো বছরের শুরুতেই নতুন বছরের শুরুতে চাল-ডাল কিনতে বাড়তি টাকা …

Leave a Reply Cancel reply